1. admin@gangchiltv.com : admin :
শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৯:১৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
লোহাগড়ায় পুলিশের হাতে ৮৫ পিচ ইয়াবাসহ তেলকাড়ার রাকিব গ্রেফতার। প্রাণ রক্ষাকারী জনকল্যানকর প্রতিষ্ঠান হিসেবে রুপ নিয়েছে দাকোপের শরিফস্। ঠাকুরগাঁওয়ে ৫দিন ব্যাপী কারুশিল্প প্রশিক্ষণ উদ্বোধন কিশোরগঞ্জ ডিবি কর্তৃক ১২০ (একশত বিশ) পিস ইয়াবাসহ ০১ জন গ্রেফতার। লোহাগড়ায় শিশু নুসরাতকে শ্বাসরোধে হত্যা করলো সৎ মা আদালতে স্বীকারোক্তি। খন্ডকালীন শিক্ষক পূর্ব পদে বহাল শর্তে আদালত থেকে জামিন পেলেন প্রধান শিক্ষক। নড়াইলে জাপান-বাংলাদেশ গ্লোবাল নার্সিং কলেজে নির্মাণের শুভ উদ্বোধন। কিশোরগঞ্জের ইটনায় ১০(দশ) কেজি গাঁজাসহ ১জন গ্রেফতার। নড়াইলের কৃতি সন্তান বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ শেখ এর জন্মবার্ষিকী পালিত। নড়াইলের নড়াগাতী খাটের নিচে থেকে ২৪কেজি গাঁজা উদ্ধারসহ ১জন গ্রেফতার।

শিক্ষক প্রশিক্ষণে নাস্তার টাকা কোথায় যাচ্ছে

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৮ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ৬৬ বার পঠিত

 

কে,এম,মোজাপ্ফার হুসাইন

১৫ টাকা মূল্যের একটি সিদ্ধ ডিম, ৫ টাকার এক প্যাকেট লেক্সাস বিস্কুট, একটি চকো পাই কেক এবং ৫ টাকা মূল্যের একটি পাকা কলা দিয়ে প্রশিক্ষণার্থী শিক্ষকদের বিদায় করা হচ্ছে। অথচ প্রতি শিক্ষককের জন্য নাস্তা বাবদ বরাদ্দ রয়েছে ৮০ টাকা। শিক্ষকরা জানিয়েছেন, সবমিলে দেয়া নাস্তার মূল্য ৩৫ টাকা। বাকী টাকা কোথায় যাচ্ছে এ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা গেছে, গত শুক্রবার থেকে মনিরামপুর উপজেলার স্কুল, মাদরাসা এবং কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ১ হাজার ৭৩৭ জন শিক্ষক কারিকুলাম প্রশিক্ষণে অংশ নিচ্ছেন। ৫ দিনের প্রশিক্ষণে শনিবার দু’দিন সমাপ্ত করেছে। প্রশিক্ষণে অংশ নেয়া শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান, আসাদুজ্জামান, আব্দুর রহমানসহ একাধিক শিক্ষক এতথ্য জানিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানিয়েছে, উপজেলায় এ কারিকুলাম প্রশিক্ষণে অংশ নেয়া ১ হাজার ৭৩৭ জন শিক্ষকের জন্য নাস্তা বাবদ ১ লাখ ৩৮ হাজার ৯৬০ টাকা বরাদ্দ থাকলেও তা মাত্র ৬০ হাজার ৭শ’ ৯৫ টাকায় বিদায় করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ চন্দ্র সরকার সাংবাদিকদের বলেন, আমরা প্রতি শিক্ষককে ৪০ টাকার নাস্তা দিচ্ছি। দপ্তরে লোক সংকট থাকায় মনিরামপুরে আয়োজন করতে না পেরে যশোর থেকে ভাড়া দিয়ে নাস্তা আনা হচ্ছে। প্রশিক্ষণার্থী বাদে ৫২ জন প্রশিক্ষক ও তিন কেন্দ্রের স্টাফদের জন্য আরো ১০০ প্যাকেট নাস্তা বেশি আনতে হচ্ছে। সেখানে বাড়তি খরচ হচ্ছে।

বিকাশ চন্দ্র সরকার দাবি করেন, এছাড়া আরো কিছু খরচ আছে। আমি একটি টাকাও রাখছি না। যতদূর সম্ভব, আমি স্বচ্ছতা রাখার চেষ্টা করি। তবে বিকাশ চন্দ্র সরকারের দেয়া তথ্য হিসাব করলেও তিনি প্রশিক্ষণ বাবদ দিনে ৫০ হাজারের বেশি টাকা পকেটে ভরছেন বলে তথ্য মিলছে। যশোর জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এ কে এম গোলাম আজম বলেন, সামনে আরো প্রশিক্ষণ আছে। তখন নাস্তার মান উন্নত করার জন্য বলে দেব।

Facebook Comments Box
এ জাতীয় আরও খবর

আজকের দিন-তারিখ

  • শুক্রবার (রাত ৯:১৮)
  • ১লা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি
  • ১৭ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ ©  গাঙচিল টিভি
Theme Customized By Shakil IT Park